করোনায় আক্রান্ত লারা? গুজব বললেন নিজেই

করোনায় আক্রান্ত লারা? গুজব বললেন নিজেই
ক্রিকেট কিংবদন্তি ব্রায়ান লারা

স্পোর্টস ডেস্কঃ 
সামাজিক যোগাযোগ মাধ্যমে ছড়িয়ে পড়েছিল খবরটা। করোনাভাইরাসে আক্রান্ত হয়েছেন ক্রিকেট কিংবদন্তি ব্রায়ান লারা। তবে ক্যারিবীয় তারকা নিজেই উড়িয়ে দিয়েছেন এটিকে। বলেছেন তিনি পরীক্ষা করিয়েছেন এবং তাঁর রিপোর্ট নেগেটিভ এসেছে। ওয়েস্ট ইন্ডিজের সাবেক তারকা অবশ্য সামাজিক যোগাযোগ মাধ্যমে ছড়িয়ে পড়া এই গুজবকে ‘ভিত্তিহীন’ ও ‘পীড়াদায়ক’ বলছেন। তিনি করোনা নিয়ে মানুষের মধ্যে এ ধরনের আতঙ্ক ছড়ানোও নিন্দা জানিয়েছেন।

তিনি নিজের টুইটার ও ইনস্টাগ্রামে এক বার্তায় এর প্রতিবাদ করেছেন, ‘সামাজিক যোগাযোগের মাধ্যমে আমাকে নিয়ে ছড়ানো যাবতীয় গুজব আমার চোখে পড়েছে। গুজব ছড়িয়ে পড়েছিল যে আমি করোনাভাইরাসে আক্রান্ত হয়েছি। এ মুহূর্তে সঠিক তথ্যটি সবাইকে জানানো প্রয়োজনীয়তা অনুভব করছি। সামাজিক যোগাযোগ মাধ্যম আমাকে নিয়ে ছড়িয়ে পড়া তথ্যটি কেবল মিথ্যেই নয়, এটা করোনাভাইরাসে জর্জরিত আমাদের সমাজের জন্য ক্ষতিকরও। সবাই এমনিতেই করোনার কারণে পীড়াদায়ক পরিস্থিতির মধ্য দিয়ে যাচ্ছে, তাই এ ধরনের গুজব তাদের জন্য ক্ষতিকর হয়ে উঠতে পারে।’ এ ধরনের মিথ্যে তথ্য তাঁকেও ক্ষতিগ্রস্ত করেছে বলে লিখেছেন লারা, ‘এ গুজব আমাকে ক্ষতিগ্রস্ত করেছে। তবে আমার চিন্তার জায়গাটা অন্য। এ ধরনের মিথ্যা সংবাদ আমার বন্ধু-বান্ধব ও কাছের লোকজনের মধ্যে অহেতুক আতঙ্ক সৃষ্টি করেছে।’

লারা মনে করেন খুব শিগগিরই করোনা থেকে যেহেতু বিশ্ববাসীর রেহাই নেই, তাই এটা নিয়ে নেতিবাচক খবর ছড়িয়ে হইচই সৃষ্টি করারও কিছু নেই, ‘করোনা নিয়ে নেতিবাচক খবর পরিবেশন করে হইচই তৈরির কিছু নেই। আমি আশা করি, এবং প্রার্থনা করি করোনার হাত থেকে যেহেতু খুব শিগগিরই আমাদের নিস্তার নেই তাই এই সময়টা সবাই সুস্থ থাকুক, নিরাপদে থাকুক।’ করোনা পরীক্ষায় নেগেটিভ আসার কথাও লারা জানিয়েছেন ইনস্টাগ্রামে, ‘আমি কোভিড-১৯ পরীক্ষা করিয়েছি এবং আমার ফল নেগেটিভ এসেছে।’

ক্রিকেট দুনিয়াতে এরই মধ্যে করোনার থাবা পড়েছে। গত জুন মাসে করোনায় আক্রান্ত হয়েছিলেন বাংলাদেশ ক্রিকেট দলের সাবেক অধিনায়ক মাশরাফি বিন মুর্তজা। আক্রান্ত হয়েছিলেন বাংলাদেশি ক্রিকেটার নাজমুল হোসেন ও সাবেক ক্রিকেটার নাফিস ইকবাল। এ ছাড়াও পাকিস্তানের সাবেক অধিনায়ক শহীদ আফ্রিদিও আক্রান্ত হয়েছিলেন। পাকিস্তান ক্রিকেট দলের ইংল্যান্ড সফরের আগে করোনা পরীক্ষায় মোহাম্মদ হাফিজ, ওয়াহাব রিয়াজসহ বেশ কয়েকজনের করোনা ধরা পড়ে।