মেঘমালা

মেঘমালা

জি এম কাউসার আলী,

(অষ্ট্রেলিয়া)

মেঘমালা, আঁঠাশ বছর পর আবার দেখা!

মনে পড়ে সেই পুতুল প্রণয়ে মন দেয়া নেয়া?

তুমি সাঁজতে বউ, আর আমি হতাম বর,,

তালপাতার বাঁশীতে সানাইয়ের বধুবরণ সুর।

শাপলা শালুক কুড়াতাম চড়ে ডিঙি নৌকাতে,

শামুক ঝিনুক কুড়াতে চড়তাম কলার ভেলাতে!!

মনে পড়ে? বাড়ী থেকে বের হয়ে দাঁড়িয়ে থাকতে,

রাস্তার মোড়ে আমার স্কুল যাবার সাথী হতে?

ইটের পর ইট সাজিয়ে বসে জায়গা খালি রাখতে,

আমাকে তোমার পাশে রাখবে এমন আশাতে!!

মনে পড়ে মেঘমালা? লুকিয়ে আনতে কত সুস্বাদু খাবার,

খেয়ে আমি রসনায় পূর্ণ করতাম আমার উদর ,

তাকিয়ে তাকিয়ে তৃপ্তিতে তুমি হতে আত্মহারা!

তোমার অবুঝ মন বালিকা প্রেমে আমি ছিলাম দিশেহারা,

মনে পড়ে কি? কিশোরী কালে লজ্জার শিহরণ উপেক্ষা করে,

শ্রাবণের প্রবল বর্ষনে একছাতার নীচে হাঁটতাম হাত ধরে,

ততোদিনে তুমি আমি বুঝে গেছি নিরব কথার সন্ধিক্ষণে,

তুমি ছাড়া আমি, আমি ছাড়া তুমি থাকতে পারিনা দুজনে

লুকিয়ে লুকিয়ে চিঠি লিখে আমরা গুজে দিতাম হাতে আর বইতে,

তোমাতে আমাতে দেখা না হলে পারতাম কেউ সইতে!!

মনে পড়ে কি মেঘমালা? সেই যৌবন দীপ্ত বসন্তের প্রেমের সুড়সুড়ি?

শিরিস আর তেঁতুল পাতার নীচে আমাদের চোঁখের লুকোচুরি?

দু"জন একসাথে চলবো যতদিন বাঁচি এই ভবে,

পৃথক হবোনা বাঁধা ডিঙিয়ে থাকবো আমরা একত্রে,

দুটি পারিবারকে খুশি রাখতে দুজনের শীতল সিদ্ধান্তে,

ধর্মের বেড়াজালে বাধ্য হলাম অপুর্ণ ভালোবাসার হাত ছাড়তে।

মিলন মোহনা থেকে বাঁক নিলো আশার স্রোত গুলো,

জীবন পেলোনা ভালোবাসার সোনালী অনুজীব গুলো!

বলো মেঘমালা কেমন আছো? ঐশ্বর্য্যের পরিপূর্ণতায়?

জানি ! না ভালো আছি তুমি, আমি, ভালোবাসার দৈন্যতায়।

স্মৃতি হাতড়িয়ে বুক ফাঁটা বোবা কান্না নিরবে,

অবসাদ পেতে চায় মনের গভীরে নিভৃতে।

মেঘমালা যেখানে থাকি যতদুরে থাকি সংসারের পরিমন্ডলে,

ভালোবাসা বেঁচে থাকবে আমাদের অনুভবের অন্তরালে,

দুরত্ব ব্যবধান অদেখা করবে না আমাদের ছিন্ন!!

আমাদের সম্পর্কে আমরা হয়ে থাকবো মোহাছ