বৃহস্পতিবার ১ জানুয়ারি, ১৯৭০
ঢাকার দুই সিটিতে প্রার্থীদের নির্বাচনী প্রচারণা শুরু
১০ ফেব্রুয়ারি, ২০১৯

বাংলাভাষী ডেস্ক:: ঢাকার দুই সিটি করপোরেশন নির্বাচনে প্রতিদ্বন্দ্বী প্রার্থীদের মধ্যে আজ থেকে আনুষ্ঠানিক প্রচারণা শুরু হয়েছে। ঢাকা উত্তর সিটি করপোরেশন (ডিএনসিসি) ও ঢাকা দক্ষিণ সিটি করপোরেশন (ডিএসসিসি) নির্বাচনে প্রার্থীদের মধ্যে প্রতীক বরাদ্দের মধ্যদিয়ে এই প্রচারণা শুরু হয়।  আজ সকাল পৌনে এগারটায় ডিএনসিসির উপনির্বাচনে মেয়র প্রার্থীদের মধ্যে প্রতীক বরাদ্দ করেছেন রিটার্নিং কর্মকর্তা আবুল কাসেম। মেয়র পদে আওয়ামী লীগের প্রার্থী   মো. আতিকুল ইসলাম নৌকা, জাতীয় পার্টির শাফিন আহমেদ লাঙ্গল, ড. ফেরদৌস আহমদ কোরেশীর প্রগতিশীল গণতান্ত্রিক দল (পিডিপি) থেকে শাহিন খান বাঘ, ন্যাশনাল পিপলস পার্টির (এনপিপি) আনিসুর রহমান দেওয়ান আম ও স্বতন্ত্র প্রার্থী নর্থ সাউথ প্রপার্টিজ লিমিটেডের চেয়ারম্যান মো. আবদুর রহিম টেবিল ঘড়ি প্রতীক  পেয়েছেন। তবে, কাউন্সিলর পদে প্রার্থীদের মাঝে প্রতীক বরাদ্দ চলছে। ডিএনসিসি ও ডিএসসিসি রিটার্নিং কর্মকর্তার কার্যালয় বিষয়টি নিশ্চিত করেছে। এ ব্যাপারে রিটার্নিং কর্মকর্তা আবুল কাসেম প্রতীক বরাদ্দ শেষে সাংবাদিকদের বলেন, সব প্রার্থীরা নির্বাচনের আচরণবিধি মেনে আজ থেকেই প্রচারণায় অংশ নিতে পারবেন। তিনি বলেন, ২৬শে ফেব্রুয়ারী মধ্যরাত ১২ টা পর্যন্ত প্রচারণা করা যাবে। এদিকে দুই সিটির কাউন্সিলর প্রার্থীদের মধ্যেও প্রতীক বরাদ্দ দেয়া হয়েছে। ঢাকা উত্তর সিটির ২০টি সাধারণ ওয়ার্ডে ৪০ জন ও সংরক্ষিত ৬টি ওয়ার্ডে ১ জন এবং ঢাকা দক্ষিণ সিটির ১৮টি ওয়ার্ডে ২৬ জন ও সংরক্ষিত ৬টি ওয়ার্ডে ১ জন প্রার্থীতা প্রত্যাহার করেছেন। ফলে, চূড়ান্তভাবে ডিএনসিসিতে ২০টি সাধারণ ওয়ার্ডে কাউন্সিলর প্রার্থী ১২০ জন এবং ৬টি সংরক্ষিত ওয়ার্ডে নারী কাউন্সিলর প্রার্থী ৪৪ জন। বিপরীতে ডিএসসিসি‘র ১৮টি সাধারণ ওয়ার্ডে কাউন্সিলর প্রার্থী ১২৩ জন এবং ৬টি সংরক্ষিত ওয়ার্ডে নারী কাউন্সিলর প্রার্থী ২৪ জন। এদিকে, ডিএনসিসি ও ডিএসসিসি নির্বাচনে ৩৮ সাধারণ ওয়ার্ডের কাউন্সিল পদে মোট প্রার্থীর সংখ্যা ২৪৩ জন। দুই সিটিতে ১২টি সংরক্ষিত ওয়ার্ডের নারী কাউন্সিল পদে প্রার্থীর সংখ্যা ৬৮ জন। উল্লেখ্য, ২০১৫ সালের ২৮শে এপ্রিল ঢাকা উত্তর ও দক্ষিণ সিটি করপোরেশন নির্বাচন অনুষ্ঠিত হয়। কিন্তু নির্বাচনের আড়াই বছর পর ২০১৭ সালের ৩০শে নভেম্বর চিকিৎসাধীন অবস্থায় মেয়র আনিসুল হক লন্ডনে মারা যান। এতে করে আসনটি শূন্য হয়ে পড়ে। অন্যদিকে, দুই সিটিতে ২০১৭ সালে ১৮টি করে ৩৬ টি নতুন ওয়ার্ড যুক্ত হলে এই ওয়ার্ডগুলোতে নির্বাচন করা হচ্ছে। মেয়র পদে শূন্য আসনে উপনির্বাচন ৩৬টি নতুন ওয়ার্ডে সাধারণ নির্বাচন করতে ২০১৮ সালের ৯ই জানুয়ারি ইসি ডিএনসিসি নির্বাচনের তফসিল ঘোষণা করে। ঘোষিত তফসিল অনুযায়ী গত বছরের ২৬শে ফেব্রুয়ারি ভোট গ্রহণের কথা ছিল। কিন্তু গত বছরের ১৭ই জানুয়ারি এই নির্বাচন তিন মাসের জন্য স্থগিতের আদেশ দেন হাইকোর্টের একটি বেঞ্চ। চলতি বছরের ১৬ জানুয়ারি স্থগিতের আদেশ খারিজ করে দেন হাইকোর্ট। এরপর গত ২২ জানুয়ারি ইসি নতুন তফসিল ঘোষণা করে। ঘোষিত তফসিল অনুযায়ী, আগামী ২৮শে ফেব্রুয়ারী ডিএনসিসি মেয়র ও দুই সিটির ১৮ টি করে ৩৬টি ওয়ার্ডে সাধারণ নির্বাচন। শনিবার ছিল প্রার্থীদের মনোনয়নপত্র বাছাইয়ের শেষ দিন।

সম্পাদক : মোঃ ওলিউর রহমান খান প্রকাশক : মোঃ শামীম আহমেদ
ফোন : +44 07490598198 ই-মেইল : news@banglavashi.com
Address: 1 Stoneyard Lane, London E14 0BY, United Kingdom
  কপিরাইট © 2015-2017
banglavashi.com এর সকল স্বত্ব সংরক্ষিত
বাস্তবায়নে : Engineers IT