বৃহস্পতিবার ১ জানুয়ারি, ১৯৭০
সিলেটে গ্রেফতারের দেড়ঘন্টা পর মুক্ত সারওয়ার
১৪ মে, ২০১৯

 

বাংলাভাষী ডেস্ক

সিলেট উইমেন্স মেডিক্যাল কলেজের ইন্টার্ন চিকিৎসক ডা. নাজিফা আনজুম নিশাতকে ছোরা দেখিয়ে হত্যা ও ধর্ষণের হুমকি দেওয়ার ঘটনায় দায়ের করা মামলায় দক্ষিণ সুরমা উপজেলা ছাত্রলীগের সহসভাপতি সারোয়ার হোসেন চৌধুরীকে গ্রেফতারের দেড় ঘন্টার মাথায় মুক্তি পেয়েছেন তিনি। মঙ্গলবার (১৪ মে) বেলা আড়াইটার দিকে কোতোয়ালি থানাধীন নগরের কোর্টপয়েন্ট এলাকা থেকে পুলিশ তাকে গ্রেফতার করে।গ্রেফতারের আগেই জামিন নিয়ে নেন সারওয়া।পরে পুলিশকে জামিনের কাগজ দেখালে পুলিশ তাকে ছেড়ে দে। বিষয়টি নিশ্চিত করেছেন কোতোয়ালি থানার ওসি সেলিম মিঞা। ওসি জানান, পুলিশ গোপন সংবাদের ভিত্তিতে আদালতের গেট থেকে সারোয়ার হোসেনকে গ্রেফতার করা হয় পরে কোর্ট থেকে এই মামলায় জ্মিনের কাগজ দেখালে আমারা তাকে ছেড়ে দেই। উল্লেখ্য দক্ষিণ সুরমা উপজেলা ছাত্রলীগের সহসভাপতি সারোয়ার হোসেন চৌধুরীকে প্রধান আসামি করে অজ্ঞাত আরও ৮-১০ জনের বিরুদ্ধে থানায় মামলা দায়ের হয়েছে। সোমবার (১৩ মে ) রাতে মহানগর পুলিশের কোতোয়ালি থানায় মামলা দায়ের করেন হাসপাতালের পরিচালক ডা. ফেরদৌস হাসান। এর আগে গত শনিবার (১১ মে) ইন্টার্ন চিকিৎসক ডা. নাজিফা আনজুম নিশাতের নিরাপত্তা চেয়ে থানায় সাধারণ ডায়েরি (নং- ৬১৭ ) করেছিলেন ডা. ফেরদৌস হাসান। উল্লেখ্য, গত ৯ মে বিকালে ১০-১৫ জন ছাত্রলীগ নেতাকর্মী পেটের পীড়ায় ভোগা একজনকে সিলেট উইমেন্স মেডিক্যাল কলেজ হাসপাতালে নিয়ে যান। এসময় রোগীর সঙ্গে একজন থেকে বাকিদের বাইরে যেতে বলেন কর্তব্যরত চিকিৎসক। এ নিয়ে কথা কাটাকাটির এক পর্যায়ে চিকিৎসকের ওপর চড়াও হয় ছাত্রলীগ নেতাকর্মীরা। এসময় দক্ষিণ সুরমা উপজেলা ছাত্রলীগের সহ-সভাপতি সারোয়ার হোসেন চিকিৎসক নাজিফা আনজুম নিশাতকে ছুরি দেখিয়ে হত্যা ও ধর্ষণের হুমকি দেন বলে অভিযোগ করেন ওই চিকিৎসক। নিশাত নিজের ব্যক্তিগত ফেসবুক আইডিতে বিষয়টি উল্লেখ করে পোস্ট দিলে এনিয়ে সামাজিক যোগাযোগের মাধ্যমে ব্যাপক আলোচনার সৃষ্টি হয়। 

সম্পাদক : মোঃ ওলিউর রহমান খান প্রকাশক : মোঃ শামীম আহমেদ
ফোন : +44 07490598198 ই-মেইল : news@banglavashi.com
Address: 1 Stoneyard Lane, London E14 0BY, United Kingdom
  কপিরাইট © 2015-2017
banglavashi.com এর সকল স্বত্ব সংরক্ষিত
বাস্তবায়নে : Engineers IT