বৃহস্পতিবার ১ জানুয়ারি, ১৯৭০
এবার ঘুষের অডিও ফাঁস করলেন সিলেটের সাবেক ডিআইজি
১০ জুন, ২০১৯

বাংলাভাষী ডেস্ক :: আলোচনা-সমালোচনা যেন পিছু ছাড়তে চাইছে না সিলেটের সাবেক ডিআইজি মিজানুর রহমানের। সর্বশেষ দুদকের তদন্তে তার বিপুল পরিমাণ সম্পদের প্রমাণ পাওয়ার পর এবার উত্তপ্ত কড়াইয়ে ঘি ঢাললেন মিজান নিজেই। অভিযোগ তুলেছেন দুদকের তদন্তকারী কর্মকর্তাকে দুই দফায় ৪০ লাখ টাকা ঘুষ দেয়ার। 


তদন্ত কর্মকর্তা দুদকের পরিচালক খন্দকার এনামুল বাসির অবশ্য এ অভিযোগ অস্বীকার করেছেন। আর বিশিষ্টজনেরা বলছেন, ঘুষ দেয়া ও নেয়া দুটোই অপরাধ। তাই মিজানের অভিযোগ সত্য হলে উভয়ের বিরুদ্ধেই মামলা হওয়া প্রয়োজন।

নারী কেলেংকারির ঘটনায় দায়িত্ব থেকে প্রত্যাহার হওয়া ডিআইজি মিজানের দাবি তদন্তকালীন সময়ে চলতি বছরের জানুয়ারিতে তিনি দুদক পরিচালক এনামুল বাসিরকে প্রথমে ২৫ লাখ টাকা ও পরে আরও ১৫ লাখ টাকা দেন।

মিজানের দাবি, পরবর্তীতে ২ জুন এনামুল বাসির জানান দুদক চেয়ারম্যান ও কমিশনারের চাপে তিনি তাকে মামলা থেকে অব্যাহতি দিতে পারেননি। 

এ ঘটনার পর ক্ষিপ্ত হয়ে এনামুল বাসিরের সাথে কথোপকোথনের অডিও রেকর্ড ফাঁস করেন মিজান। এ নিয়ে রোববার এটিএন নিউজে একটি সংবাদও প্রচার হয়। 

তবে ডিআইজি মিজানের অভিযোগ অস্বীকার করেছেন এনামুল বাসির। ফাঁস করা অডিও রেকর্ড ভূয়া বলে দাবি করেছেন তিনি। মিজানের কাছ থেকে টাকা নেয়ার অভিযোগও প্রত্যাখান করেন এনামুল বাসির বলেন, ‘গত মাসের শেষের দিকে প্রতিবেদন জমা দিয়ে আমি মিজানের বিরুদ্ধে মামলার করার সুপারিশ করেছি। টাকা নিলে আমি মামলা করার সুপারিশ করতাম কিভাবে। তদন্ত প্রভাবিত করতে না পেরে মিজান আমার বিরুদ্ধে অপপ্রচার করছেন।’

এ বিষয়ে সুপ্রিম কোর্টের আইনজীবী ও সংবিধান বিশেষজ্ঞ শাহদীন মালিক গণমাধ্যমকে বলেন, ঘুষ দেওয়া-নেওয়া দুটোই অপরাধ। দুদক পরিচালকের ঘুষ নেয়ার অভিযোগটি দ্রুত তদন্তের মাধ্যমে আইনি ব্যবস্থা নেওয়া প্রয়োজন। অভিযোগ সত্যি হলে উভয়ের বিরুদ্ধে মামলা হতে হবে এবং তদন্তকালীন আইন অনুযায়ী তাদের সাময়িক বরখাস্ত করতে হবে। 

সম্পাদক : মোঃ ওলিউর রহমান খান প্রকাশক : মোঃ শামীম আহমেদ
ফোন : +44 07490598198 ই-মেইল : news@banglavashi.com
Address: 1 Stoneyard Lane, London E14 0BY, United Kingdom
  কপিরাইট © 2015-2017
banglavashi.com এর সকল স্বত্ব সংরক্ষিত
বাস্তবায়নে : Engineers IT