বৃহস্পতিবার ১ জানুয়ারি, ১৯৭০
সিলেটে তীব্র গরমে অতিষ্ঠ নগরবাসী
১১ জুন, ২০১৯



বাংলাভাষী ডেস্ক::সিলেটে তীব্র গরমে অতিষ্ঠ নগরবাসী। বৃষ্টিবিহীন আবহাওয়ায় ঘরের চেয়ে বাহিরের অবস্থা আরো বেশি ভয়াবহ। বেলা বাড়ার সাথে সাথে প্রতিযোগীতা দিয়ে বাড়ছে তাপমাত্রা। আর তাই ঘরে-বাহিরে নগরবাসীর একমাত্র সঙ্গী ছাতা ও পানির বোতল।

মঙ্গলবার বিকেল ৪টায় সিলেট আবহাওয়া অফিসের আবহাওয়াবিদ সাঈদ আহমদ চৌধুরী জানান, সিলেটে আজ তাপমাত্রা রেকর্ড করা হয়েছে ৩৫.৩ ডিগ্রী সেলসিয়াস।
দিনে ও রাতে ভাপসা গরমে অসহনীয় হয়ে উঠেছে জনজীবন। আজকের তাপ বাতাসে আপেক্ষায় জলীয়বাষ্প ও আর্দ্রতার মাত্রা বেশি থাকার কারণে মানুষ অতিরিক্ত ঘামছে। 

গরমের কারণে সিলেট বিভিন্ন স্থানে গাছের ছায়ায় অনেকেই বসে বিশ্রাম নিচ্ছেন। ভীড় বেড়েছে ফুটপাতের শরবত ও ডাব বিক্রির দোকানগুলোতে।

পথচারী শাহজান সেলিম বুলবুল জানান, একে’তো তীব্র গরম তার উপর আবার রাস্তায় জ্যাম দুটো মিলে খুব খারাপ অবস্থা। বাহিরে বের হলেই ঘামে কাপড় ভিজে যাচ্ছে, অল্পতেই ক্লান্ত হয়ে পড়ছি। আর প্রচুর পরিমাণ পানির পিপাসা লাগছে। ফলে কাজে মনোযোগ দিতে পারছি না। তাই গরম থেকে রক্ষ জন্য ডাব ক্রয় করে পিপাসা মিটাচ্ছি। 

রিকশা চালক চাঁন মিয়া জানান, তীব্র গরমে রিকশা চালাতে কষ্ট হচ্ছে। অতিরিক্ত গরমের কারণে আমাদের মতো খেটে খাওয়া মানুষদের চরম ভোগান্তি পোহাতে হচ্ছে। এই রোদে রিকসা চালানো খুব কঠিন হয়ে পড়ছে। ছায়ায় বিশ্রাম নিতে হচ্ছে। ঠিকমতো রিকসা চালাতে পারছি না। ফলে আয় রোজগারও কমে গেছে। অতিরিক্ত ঘামের কারণে ঠান্ডা লেগে আমার গত দুই দিন যাবত জ্বর হয়েছে।

ডাব বিক্রয় ব্যবসায়ী লিটন মিয়া জানান, আজকে তীব্র গরমে আমার কিছুটা ডাব বিক্রয় ভাল। তবে তীব্র গরমে ব্যবসা করতে কষ্ট হচ্ছে। 

ব্যবসায়ী রফিক মিয়া জানান, আজকে তীব্র গরমে সমস্যা হচ্ছে। ঠিকমতো ব্যবসা করতে পারছি না। ঘামে জামাকাপড় ভিজে যায়। ফ্যানের বাতাস পর্যন্ত গরম লাগে। আর বিদ্যুৎ চলে গেলেতো কোনো কথাই নেই, অতিষ্ঠ লাগে।


সম্পাদক : মোঃ ওলিউর রহমান খান প্রকাশক : মোঃ শামীম আহমেদ
ফোন : +44 07490598198 ই-মেইল : news@banglavashi.com
Address: 1 Stoneyard Lane, London E14 0BY, United Kingdom
  কপিরাইট © 2015-2017
banglavashi.com এর সকল স্বত্ব সংরক্ষিত
বাস্তবায়নে : Engineers IT