বৃহস্পতিবার ১ জানুয়ারি, ১৯৭০
লক্ষণাবন্দ ও ভাদেশ্বর ইউনিয়ন চেয়ারম্যানের পদ শূন্য হওয়ার আশংকা
৯ সেপ্টেম্বর, ২০১৯

 

বাংলাভাষী ডেস্ক ::গোলাপগঞ্জে দুটি ইউনিয়নে উপ-নির্বাচন অনুষ্ঠানের আশংকা দেখা দিয়েছে। খুব শীঘ্রই ওই দু’ইউনিয়নের চেয়ারম্যানের পদ শূন্য হতে পারে বলে বিশ^স্ত সূত্রে জানা যায়। স্থানীয় সরকার মন্ত্রণালয়ের বিধি মোতাবেক অনুমতি না নিয়ে লক্ষণাবন্দ ও ভাদেশ্বর ইউনিয়নের চেয়ারম্যান যুক্তরাষ্ট্রে চলে যাওয়ায় প্রশাসনিক ভাবে তাদের পদ শূন্য হিসেবে ঘোষণা করতে সব পদক্ষেপ নেয়া হচ্ছে। ইতিমধ্যে উপজেলা প্রশাসন জেলা প্রশাসকের কাছে এ ব্যাপারে লিখিত পত্র দিলে বিষয়টি বিভাগীয় কমিশনারের দপ্তরে প্রেরণ করা হয়েছে। এরই আলোকে সরকারের স্থানীয় সরকার বিভাগ অগ্রসর হচ্ছে বলে প্রশাসনিক সূত্র জানায়।

গোলাপগঞ্জ উপজেলার ৭নং লক্ষণাবন্দ ইউনিয়নের চেয়ারম্যান নছিরুল হক শাহীন। তিনি পর পর ৪ বার এ ইউনিয়নে চেয়ারম্যান পদে নির্বাচন করে বিজয়ী হন। টানা ৪ বারের চেয়ারম্যান হিসেবে নছিরুল হক শাহীন নিজ ইউনিয়নে ব্যাপক গ্রহণ যোগ্যতা অর্জন করলেও মার্কিন যুক্তরাষ্ট্রে স্থায়ীভাবে বসবাস করার জন্য চলে যাওয়ায় তার দীর্ঘ দিনের আসনটি শূন্য হতে যাচ্ছে। তিনি গোলাপগঞ্জ উপজেলা বিএনপির বিগত কাউন্সিলে সভাপতি হিসেবে নির্বাচিত হন। গত ৩০ ডিসেম্বরের একাদশ জাতীয় সংসদ নির্বাচন উপলক্ষে যুক্তরাষ্ট্র থেকে দেশে এসে নিজ দলীয় প্রার্থী ফয়ছল আহমদ চৌধুরীর পক্ষে ব্যাপক গণসংযোগে নিজেকে সম্পৃক্তি করেন। নির্বাচনের পূর্ব মুহুর্তে বিএনপির নির্বাচনী সভা চলাকালীন সময়ে হেতিমগঞ্জ বাজারে উপজেলা সহকারী কমিশনার (ভূমি) সুমন্ত ব্যানার্জীর উপর হামলা হলে এ বিষয়ে মামলা হয়। এতে উপজেলা বিএনপির সভাপতি নছিরুল হক শাহীনকে এজাহার ভুক্ত আসামী করা হলে তিনি জামিনে মুক্তি লাভ করেন। যুক্তরাষ্ট্র থেকে দেশে প্রত্যাবর্তন করে প্রায় ৬ মাস দেশে থাকাকালীন সময়ে চেয়ারম্যানের দায়িত্ব পালন করেন। ৬ মাস দায়িত্ব পালনের পর যুক্তরাষ্ট্রে ফের চলে যাওয়ায় তার বিরুদ্ধে স্থানীয় সরকার বিভাগ ব্যবস্থা গ্রহণের পদক্ষেপ নেয়। এ ব্যাপারে উপজেলা নির্বাহী অফিসার মামুনুর রহমান প্রতিবেদককে জানান ইউনিয়ন চেয়ারম্যান হিসেবে সংশ্লিষ্ট কর্তৃপক্ষের অনুমতি নিয়ে যেভাবে বিদেশ যাওয়ার কথা সেভাবে তিনি না যাওয়ায় বিষয়টি উপজেলা প্রশাসনের পক্ষ থেকে জেলা প্রশাসককে লিখিতভাবে জানানো হয়েছে। জেলা প্রশাসকের পক্ষ থেকে উর্ধ্বতন কর্তৃপক্ষকে বিষয়টি অবহিত করায় লক্ষণাবন্দ ইউনিয়নের চেয়ারম্যানের পদটি শূন্য হওয়ার পথে।

এদিকে, উপজেলা বিএনপির সাধারণ সম্পাদক জিলাল উদ্দিন ৮নং ভাদেশ^র ইউনিয়নের চেয়ারম্যান। তিনিও লক্ষণাবন্দ ইউনিয়নের চেয়ারম্যান ও উপজেলা বিএনপির সভাপতি নছিরুল হক শাহীনের মত ইমিগ্র্যান্ট ভিসায় যুক্তরাষ্ট্রে গিয়েছিলেন। বিগত জাতীয় সংসদ নির্বাচনের পূর্বে নির্বাচনী কার্যক্রমে অংশ গ্রহণ করার জন্য দেশে আসেন। হেতিমগঞ্জের ঘটনায় তাকেও আসামী করা হয়। অন্যান্যের মত তিনি এ মামলা থেকে জামিনে মুক্তি লাভ করে ফের যুক্তরাষ্ট্রে চলে যান। জিলাল উদ্দিন নছিরুল হক শাহীনের মত স্থানীয় সরকার মন্ত্রণালয়ের যথা নিয়মে বিদেশ না যাওয়ায় তার পদটি ও শূন্য হওয়ার আশংকা রয়েছে।

গোলাপগঞ্জ উপজেলা বিএনপির সভাপতি ও সাধারণ সম্পাদক দুজন উপজেলার গুরুত্বপূর্ণ দুটি ইউনিয়নের চেয়ারম্যান নির্বাচিত হওয়ায় জেলা বিএনপির কাছে তারা বেশ গ্রহণ যোগ্যতা অর্জন করেন। এজন্য তাদেরকে জেলা বিএনপির কমিটিতে ও সম্মান জনক পদ দান করা হয়। মামলা আর পুলিশি হয়রানিতে গোলাপগঞ্জ উপজেলার দুজন সজ্জন ব্যক্তি চরমভাবে হয়রানির শিকার হয়ে শেষ পর্যন্ত সরকারের অনমুতি না নিয়েই দেশ ছাড়তে হল।এদিকে দু ইউনিয়নে সরবে নিরবে চলছে নির্বাচনী আলাপ-আলোচনা। সম্ভাব্য চেয়ারম্যান প্রার্থীরা সাম্প্রতিক সময়ে নিজ নিজ ইউনিয়নে বিভিন্ন সভা সমাবেশ, বিয়ে-শাদি, জানাজা, দোয়া, মিলাদসহ বিভিন্ন ধর্মীয় ও সামাজিক অনুষ্ঠানে বেশী সময় দিতে দেখা যায়। প্রশাসনিক সূত্র থেকে প্রাপ্ত সংবাদে জানা যায় খুব শিঘ্রই গোলাপগঞ্জ উপজেলার লক্ষণাবন্দ ও ভাদেশ্বর ইউনিয়নের চেয়ারম্যানের পদ শূন্য হতে পারে।

সম্পাদক : মোঃ ওলিউর রহমান খান প্রকাশক : মোঃ শামীম আহমেদ
ফোন : +44 07490598198 ই-মেইল : news@banglavashi.com
Address: 1 Stoneyard Lane, London E14 0BY, United Kingdom
  কপিরাইট © 2015-2017
banglavashi.com এর সকল স্বত্ব সংরক্ষিত
বাস্তবায়নে : Engineers IT