বৃহস্পতিবার ১ জানুয়ারি, ১৯৭০
গল্প: রাজমিস্ত্রি ও তাঁর বাড়ি
২৫ ফেব্রুয়ারি, ২০২০

ফাহমিদুল আলম
একদা একরাজ মিস্ত্রি ছিলো। সে ছিলো পরিশ্রমী ও সৎ ব্যক্তি। সে ছিলো  খুব গরীব। গরীব থাকা  সত্বেও সে  কখনও অর্থ উপার্জনের জন্য অসৎ পথ অবলম্বন  করতোনা।  সে একটি কারখানার অধীনে কাজ করত। এই কারখানা থেকে মানুষের জন্য ঘর বাড়ি বানানো হতো। সে তাঁর জীবনের প্রথম কাজ এই কারখানায় শুরু করে। তার জীবন কর্মের শুরু থেকে শেষ পর্যন্ত সে এই কারখানায় কাজ করে। সে ঐ কারখানায় পুরো ৬০ বছর কাজ করে। অবশেষে তার সন্তানরা বড় হয়। তারা বাবাকে বলে এখন তুমি এই কাজ ছেড়ে দাও। তোমার অনেক বয়স হয়েছে। তখন সে সন্তানদের কথায় কাজ ছাড়ার সিদ্ধান্ত নেয়। কারখানার মালিক তাকে অনেক পছন্দ করে। সে ঐ দিন মালিকের কাছে গিয়ে বলে স্যার, আমার পক্সে আজ কাজ করনা সম্ভব হচ্ছে না।আমি কাজ ছেড়ে দেব। মালিক বলল আচ্ছা তুমি কাজ করতে না চাইলে আমি জোর করব না।কিন্তু তোমাকে আমার একটা অনুরোধ মানরতে হবে । সে বলল কি? মালিক বলল তোমার নির্মানাধীন প্রত্যেকটি বাড়ি সুন্দর হয়েছে. যা তুমি মানুষের জন্য বানিয়েছো। এখন তুমি আমাকে শেষ বারের মতো একটি বাড়ি বানিয়ে দাও।   সে বলল আপনি যখন বলছেন শেষ বারের মতো আমি সে কাজটি করবো। শুরু হলো বাড়ি তৈরীর কার্যক্রম।কিন্তু শ্রমিকটি এ বাড়িটি নির্মাণের সময় মনোযোগ সহকারে কাজ করতে পারেননি। সে শুধু ভাবতে থাকতো এই কাজ তাঁর জীবনের শেষ কাজ। এর পর সে বাড়তে পুরোটা দিন বসে কি করবে। কি ভাবে তার দিন কাটবে। অবশেষে এসব চিন্তার কারণে এই বাড়িটি সুন্দর করে তৈরী করতে পারেনি। কয়েকদিন পর কাজ সম্পন্ন হয়। সে মালিকের কাছে ফিরে গিয়ে বলে আমার সর্বশেষ কাজ শেষ হয়েছে। এবার আমি যাই।  মালিক বলল তুমি একজন সৎ শ্রমিক। এতোটা বছর কেউ এই কারখানায় কাজ করতে পারেনি, তুমি পেরেছো, তাই এই বাড়িটি আমি তোমাকে উপহার দিলাম।  এই নাও আজ থেকে এটা তোমার বাড়ি। শ্রমিক খুশি হয় মালিককে জানালো। কিন্তু মনে মনে চিন্তা করল যদি জানতাম এ বাড়িটি আমার হবে, তা হলে এটি সব থেকে সুন্দর করে তৈরী করতাম। শ্রমিক আফসোস করতে লাগলো...। শিক্ষাঃ জীবনের প্রতিটি কাজ মনোযোগ দিয়ে করতে হবে। 

সম্পাদক : মোঃ ওলিউর রহমান খান প্রকাশক : মোঃ শামীম আহমেদ
ফোন : +44 07490598198 ই-মেইল : news@banglavashi.com
Address: 1 Stoneyard Lane, London E14 0BY, United Kingdom
  কপিরাইট © 2015-2017
banglavashi.com এর সকল স্বত্ব সংরক্ষিত
বাস্তবায়নে : Engineers IT