বৃহস্পতিবার ১ জানুয়ারি, ১৯৭০
সিলেটে হ্যান্ড সেনিটাইজার-মাস্ক সংকট
২০ মার্চ, ২০২০



বাংলাভাষী ডেস্ক ::প্রাণঘাতী করোনা ভাইরাস বা কোভিড-১৯'র প্রভাব ছড়িয়ে পড়েছে বিশ্বের প্রায় অন্তত ১৮৬টি দেশে। সম্প্রতি ভাইরাসটি জায়গা করে নিয়েছে বাংলাদেশসহ দক্ষিণ এশিয়ার বিভিন্ন দেশে। ঘনবসতিপূর্ণ এসব দেশগুলোতে ভাইরাসটিতে সংক্রমণের পরিমাণ ভয়াবহ হতে পারে বলে সতর্কতার হুশিয়ারি দিয়েছে বিশ্ব স্বাস্থ্য সংস্থা (WHO)।

মহামারি এ ভাইরাস রুখতে বাংলাদেশের সকল জেলা-উপজেলার মত সিলেটেও চলছে সচেতনতামূলক প্রচার-প্রচারণা। প্রশাসন, মালিকানাধিন প্রতিষ্ঠান বা ব্যক্তিগতভাবে নেওয়া হচ্ছে প্রয়োজনীয় পদক্ষেপ। সচেতনতার প্রথম স্তরেই আছে দু'হাত সব সময় যতটা সম্ভব জীবাণুমুক্ত রাখা এবং মাস্ক ব্যবহার করা। তবে সিলেটে সংকট দেখা দিয়েছে হাত পরিষ্কার রাখার জীবাণুনাশক 'হ্যান্ড সেনিটাইজার' এবং বিভিন্ন ধরনের মাস্কের।

উন্নত দেশগুলোর মত আমাদের দেশে 'হ্যান্ড সেনিটাইজার' এর পরিচিতি অনেকটা কম থাকলেও জীবাণুনাশক হিসেবে হেক্সাসল, ডেটল, সেভলন ইত্যাদি লিকুইড ব্যবহার হয়ে থাকে। কিন্তু গত ২/৩ দিন থেকে এগুলোর কোনটাই পাওয়া যাচ্ছে না নগরীর ফার্মেসিগুলোতে। আর খুব অল্প সংখ্যক পরিমাণে পাওয়া গেলেও তা যা ফুরিয়ে যাচ্ছে চোখের পলকেই। ক্রেতারা বেশি দামের তোয়াক্কা না করেই হুমড়ি খেয়ে পড়ছেন সেগুলো কিনতে।

বুধবার বিকেলে নগরীর চৌহাট্টাস্থ প্রায় সবগুলো ফার্মেসি খুঁজেও পাওয়া গেল না হেক্সাসল লিকুইড। একই অবস্থা দেখা গেল ওসমানী মেডিকেল কলেজ হাসপাতাল সংলগ্ন রাস্তার পাশের ফার্মেসিসহ নগরীর বিভিন্ন স্থানের ফার্মেসিগুলোতেও।



এমন অবস্থায় নিজেদের অপারগতা স্বীকার করে কোন কোন ফার্মেসির কর্তব্যরতরা বিভিন্ন সুপার শপে হ্যান্ড সেনিটাইজার আর ফেইস মাস্ক পাওয়া যাবে বলে ক্রেতাদের অবহিত করেন। কিন্তু রিফাত, স্বপ্ন, ফিজা'র মত বড় বড় সুপার শপগুলোতে ঘুরে ঘুরে পাওয়া গেল না মাস্ক বা হেক্সাসল।

নগরীর মতিন ফার্মেসির কর্মরত এক ব্যক্তি বললেন, হেক্সাসল বা ফেইস মাস্ক কোনটাই আমরা ক্রেতার চাহিদামত বিক্রি করতে পারছি না। গতকাল (মঙ্গলবার) সকালে কিছু মালামাল কোম্পানি থেকে আসলেও দুপুরের আগে সেগুলো বিক্রি হয়ে যায়। তারপর থেকে অর্ডার দেওয়ার পরও সাপ্লাই আসছে না। সুতরাং ফার্মেসিতে আসা ক্রেতাদের ফিরতে হচ্ছে খালি হাতে।

এছাড়া নগরীর সেন্ট্রাল ফার্মেসি, অরিন ফার্মেসিসহ প্রায় সকল ফার্মেসির কর্মরতরা এসব পণ্য কবে পাওয়া যেতে পারে তা নিশ্চিত করে বলতে পারলেন না। কেউ কেউ বললেন বাজারে চাহিদা বেশি হওয়ায় কোম্পানিগুলো অনেক সময় পণ্যের অর্ডারও গ্রহণ করছে না।

এদিকে সংকট দেখা দিয়েছে ফেইস মাস্করেও। কিছু কিছু সুপার শপে মাস্কের দেখা মিললেও এগুলোর দাম আকাশচুম্বি। সচরাচর এসব মাস্ক ২০-২৫ টাকা দামে বিক্রি হলেও দু'দিন যাবত সুপার শপ বা ফার্মেসিগুলোতে ভাগ্যক্রমে মাস্ক পাওয়া গেলেও দাম হাঁকানো হচ্ছে ৭০-৮০ টাকা।

ফার্মেসিতে আসা ইউনিভার্সিটি পড়ুয়া এক শিক্ষার্থী বলেন, গত দু'দিন থেকে হ্যান্ড সেনিটাইজার আর মাস্ক কিনতে ফার্মেসিতে আসছি। কিন্তু প্রতিদিনই না কিনে ফিরতে হয়। ইউনিভার্সিটি ক্যাম্পাস বন্ধ থাকলেও টিউশন পড়াতে যেতে হয়। এমন অবস্থায় বাইরে বেরুলে নিজের এবং সবার সুরক্ষা নিয়েও সচেতন থাকা জরুরী।

আমাদের দেশসহ উন্নয়নশীল দেশগুলোতে খুব দ্রুত ছড়িয়ে পড়ছে প্রাণঘাতী এ ভাইরাস। ছড়াচ্ছে এক ব্যক্তি থেকে অন্য ব্যক্তির কাছে। এই দ্রুত ছড়িয়ে পড়া প্রতিরোধ করতে প্রয়োজন সকলের সম্মিলিত প্রচেষ্টা আর সচেতনতা।

সম্পাদক : মোঃ ওলিউর রহমান খান প্রকাশক : মোঃ শামীম আহমেদ
ফোন : +44 07490598198 ই-মেইল : news@banglavashi.com
Address: 1 Stoneyard Lane, London E14 0BY, United Kingdom
  কপিরাইট © 2015-2017
banglavashi.com এর সকল স্বত্ব সংরক্ষিত
বাস্তবায়নে : Engineers IT