বৃহস্পতিবার ১ জানুয়ারি, ১৯৭০
করোনাভাইরাস : যুক্তরাজ্যে আক্রান্ত ৯,৫২৯ : টাওয়ার হ্যামলেটসে ৭১ : ১৮ দিনে ৬ বাংলাদেশীর মৃত্যু
২৬ মার্চ, ২০২০

 

বাংলাভাষী ডেস্ক   

 

লন্ডনে করোনা ভাইরাসে আক্রান্ত হয়ে ২৫ মার্চ বুধবার আরো এক বাংলাদেশী ইন্তেকাল করেছেন (ইন্নালিল্লাহি ওয়া ইন্নালিল্লাহি রাজিউন)। তাঁর নাম হাজী ফখরুল ইসলাম। মৃত্যুকালে তাঁর বয়স হয়েছিলো ৬৫ বছর। তিনি ৩ ছেলে ৩ মেয়েসহ বহু আত্মীয় স্বজন ও গুণগ্রাহী রেখে গেছেন। পূর্ব লন্ডনের ডকল্যান্ডের বাসিন্দা হাজী ফখরুল ইসলামের দেশের বাড়ি গোলাপগঞ্জ উপজেলার শরীফগঞ্জ ইউনিয়নের মেহের পুর গ্রামে। এ নিয়ে গত ৮ মার্চ থেকে ২৫ মার্চ পর্যন্ত ১৮ দিনে যুক্তরাজ্যে করোনায় আক্রান্ত হয়ে মারা গেলেন ৬ বাংলাদেশী। মরহুমের সমন্ধী সাংবাদিক খান জামাল নুরুল ইসলাম বুধবার দুপুরে সাপ্তাহিক দেশকে উপরোক্ত তথ্য নিশ্চিত করে জানান, হাজী ফখরুল ইসলাম ডায়বেটিসের রোগী ছিলেন। ২৩ মার্চ সোমবার তিনি সর্দি-জ্বরে আক্রান্ত হন। পরদিন ২৪ মার্চ মঙ্গলবার তাঁকে রয়েল লন্ডন হাসপাতালে ভর্তি করা হয়। ওইদিন রাত আড়াইটার দিকে ডাক্তার পরিবারের এক সদস্যকে ফোন করে জানান, রোগীর অবস্থা আশংকাজনক। পরদিন বুধবার তিনি মৃত্যুবরণ করেন। হাসপাতালে মৃত্যুর কারণ হিসেবে করোনায় আক্রান্ত হওয়ার কথা উল্লেখ করা হয়েছে বলে সাংবাদিক খান জামাল সাপ্তাহিক দেশকে নিশ্চিত করেন। জানাজা ও দাফন কখন হবে এখনও জানা যায়নি। মরহুম ফখরুল ইসলামের ভাই বার্মিংহ্যামের ওয়ারলী এলাকার ‘জামে মসজিদ এন্ড ইসলামিক সেন্টারের’ প্রতিষ্ঠাতা চেয়ারম্যান আলহাজ মোসলেহ উদ্দিন তাঁর ভাইয়ের রুহের মাগফেরাতের জন্য সকলের কাছে দোয়া কামনা করেছেন। আরো ৫ জনের মৃত্যু: গত ২৪ মার্চ মঙ্গলবার সকাল ১০টায় রয়েল লন্ডন হাসপাতালে চিকিৎসাধীন অবস্থায় ইন্তেকাল করেন খসরু মিয়া (৪৯)। তিনি হোয়াইটচ্যাপেল মার্কেটের সুপরিচিত ব্যাবসায়ী ছিলেন। স্থানীয় আইডিয়া স্টোরের সম্মুখে তাঁর ভেজিটেবল ব্যবসার স্টল ছিলো। মরহুমের গ্রামের বাড়ি জগন্নাথপুর উপজেলার শাহারপাড়া আটঘর গ্রামে। মরহুমের ভাই এবং ভাতিজি এই মৃত্যূর খবর নিশ্চিত করে জানান, খসরু মিয়া কিডনী জটিলতাসহ বিভিন্ন রোগে ভুগছিলেন। তিনি আগে থেকেই হাসপাতালে চিকিৎসাধীন ছিলেন। শারীরিকভাবে খুবই দুর্বল ছিলেন। ২৪ মার্চ তাঁর রুমে একজন করোনাআক্রান্ত রোগী স্থানান্তর করা হলে তিনিও করোনায় আক্রান্ত হন এবং এক পর্যায়ে মৃত্যুর কোলে ঢলে পড়েন। খসরু মিয়ার মৃত্যুর কারণ হিসেবে “করোনায় আক্রান্ত হওয়ার” তথ্য হাসপাতালের নথিতে লিপিবদ্ধ করা হয় বলে পরিবার থেকে জানানো হয়েছে। এর আগে ২৩ মার্চ সোমবার রয়েল লন্ডন হাসপাতালে মারা যান টাওয়ার হ্যামলেটসের স্যাটেল স্ট্রিটের বাসিন্দা ৮০ বছর বয়স্ক হাজী জমশেদ আলী। মরহুমের গ্রামের বাড়ি বিয়ানীবাজার উপজেলার ছনগ্রামে। তাঁর ছেলে স্টার্টফোর্ড সারকামসেশন ক্লিনিকের সার্জন হাফিজ ডা. কামরুল ইসলাম। ১৩ মার্চ শুক্রবার সকাল সাড়ে ৬ টায় টাওয়ার হ্যামলেটসে মারা যান ৬৬ বছল বয়স্ক রেহান উদ্দিন। টাওয়ার হ্যামলেটসের ক্যাবল স্ট্রিটের বাসিন্দা রেহান উদ্দিনের দেশের বাড়ি গোলাপগঞ্জ উপজেলার বাগিরঘাট গ্রামে। ১৬ মার্চ লন্ডনের গ্রেট অরমন্ড হাসপাতালে মারা যান মৌলভীবাজার উপজেলা সদরের ট্রাভেল ব্যবসায়ী মাহমুদুর রহমান। এর অগে গত ৮ মার্চ ম্যানচেষ্টারে সর্বপ্রথম করোনাভাইরাসে আক্রান্ত হয়ে মারা যান ৬৪ বছর বয়স্ক ইতালিয়ান বাংলাদেশী মহসিন ইসলাম। এদিকে ২৫ মার্চ বুধবার সকাল ৯টা পর্যন্ত পাবলিক হেলথ ইংল্যান্ডের ওয়েবসাইটে দেয়া তথ্য অনুযায়ী বৃটেনে এ পর্যন্ত ৯৭ হাজার ১৯ জনের ওপর করোনাভাইরাস শনাক্তকরণ পরীক্ষা চালানো হয়েছে। এরমধ্যে ৮৭ হাজার ৪৯০ জনের রেজালট এসেছে নেগেটিভ। অর্থাৎ তাদের শরীরে করোনা ভাইরাসের কোনো উপস্থিতি পাওয়া যায়নি। এদের মধ্যে ৯ হাজার ৫২৯ জন করোনা ভাইরাসে আক্রান্ত বলে শনাক্ত করা হয়েছে। আর করোনায় মৃত্যুবরণ করেছেন সর্বমোট ৪৬৩ জন। এদিকে বাংলাদেশী অধ্যুষিত টাওয়ার হ্যামলেটসে ২৫ মার্চ বুধবার সকাল ৯টা পর্যন্ত ৭১ জন আক্রান্ত হয়েছেন বলে পাবলিক হেলথ ইংল্যান্ডের ওয়েবসাইটে উল্লেখ করা হয়েছে। 

 

সুত্রঃ সাপ্তাহিক দেশ  

সম্পাদক : মোঃ ওলিউর রহমান খান প্রকাশক : মোঃ শামীম আহমেদ
ফোন : +44 07490598198 ই-মেইল : news@banglavashi.com
Address: 1 Stoneyard Lane, London E14 0BY, United Kingdom
  কপিরাইট © 2015-2017
banglavashi.com এর সকল স্বত্ব সংরক্ষিত
বাস্তবায়নে : Engineers IT